সমাজ ও সাহিত্য | Samaj O Sahitya

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
রামমোহন রায় ৯তিনি নাকি মাঝে মাঝে ইচ্ছাপ্রকাশ করতেন, এই বচনটি যেন তাঁর সমাধি-গাত্রে উৎকীর্ণ হয়। আর ভারতীয় ক্বষকদের নিদারুণ ছুঃখের কাহিনী বর্ণনা করে” তাঁদের দুখ দূর করবার BH Last India Company-4 কর্মকর্তাদের তিনি অনুরোধ জানিয়েছিলেন সাদীর এই বাণীটি উপহার দিয়ে-- প্রজাদের সঙ্গে প্রীতিবদ্ধ হও ও (এই ভাবে) তোমার শত্রুদের যুদ্ধ সম্বন্ধে নিশ্চিন্ত হও। কেননা স্ভায়পরায়ণ নরপতির সৈন্য হচ্ছে তার প্রজা ॥ RHA যে-সব বাণী তিনি উদ্ধৃত করেছেন সে-সবের ভিতর দিয়ে তার চিত্ত PPT IAS আত্মপ্রকাশ করেছে। সবাই জানেন, ঈশ্বরের স্বরূপ নির্দেশ সম্পর্কে স্থফা-সাহিত্যে অনেক তত্বপূর্ণ কথা আছে। মৌলানা জালালুদ্দিন রুমির কবিতায় অদ্বৈত-তত্ত্ব আশ্চর্য্য সাহিত্যিক সার্থকতা লাভ করেছে। সে-সবে রামমোহন কতখানি আনন্দিত হতেন তা তেমন GS পারা যাচ্ছে না। কিন্তু শ্রেষ্ঠ স্থফীদের সুগভীর Way cay বা জীব-প্রেম যে তার পরম আনন্দের বিষয় ছিল সেটি অতি স্থর্ণরভাবে বুঝতে পারা যাচ্ছে।--বিশেষজ্ঞের৷ আজ এ বিষয়ে একমত যে বিশ্বমানবের area ধারণা রামমোহন সুস্পষ্টভাবে করেছিলেন | সেই বিশ্বমানবের একত্ব সম্বন্ধে সাদীর এই বাণীটি সুবিখ্যাত-আদম-সম্ভানরা একে অল্ঠের অঙ্গস্বরূপকেননা তাদের উৎপত্তি একই মূল থেকে |যদি এক অঙ্গে বেদনা বাজেতাহলে অন্য অঙ্গও শান্তিতে থাকে না। , মানুষের দুঃখ যদি তুমি না বোঝোতাহলে মানুষ নাম নেওয়া তোমার SHTF হয়েছে |



Leave a Comment