নীরব প্রাণের দেবতা | Nirab Praner Debata

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
সতীসায়রের চেয়ে আরও মনোরম, দুর্গম, নির্জন এবং চিত্তাকর্ষক মেঘ আর OAs একাকার জায়গাটা মানস সরোবর নামে খ্যাত।কশ্যপের পায়ের ছাপ পড়া Ra সবুজশ্যামল দেশে দৈত্যের উৎপাত শুরু হল। কশ্যপের বংশধর কদ্রুর নাগ পুত্ররা সতীসায়রের আশপাশে তাদের রাজ্যপাট তৈরি করে বাস করছিল। অন্যেরা কশ্যপভূমি ছেড়ে অন্য দিকে এগিয়ে গেল। নতুন জায়গায় যজ্ঞকুণ্ড জ্বেলে সমাজ গড়ল। আশ্রম তৈরি করল। গোত্র ও বংশের প্রতিষ্ঠা করল। তারপর দিনে দিনে সে বংশ বিস্তৃত হল। বংশের এক এক ধারা এক একদিকে। জঙ্গল কেটে জনপদ তৈরি হল। নগরের উদ্ভব হল। একজন শাসকের দরকার হল। লেখা হল নতুন শান্ত্র, বেদ। লিপিবদ্ধ হল নতুন নতুন উপলব্ধি ও দর্শন। কিন্তু তাতেও মানুষের ভেতরে লুকোনো দানবটাকে দমিয়ে রাখা গেল না। সে এল ভাল-মন্দের রন্ধূপথ ধরে। মানুষ থেকে দৈত্য-দানব-অসুরের উদ্ভব হল। ধর্মহীনতা কর্তব্যভ্রষ্টের পাপে, দায়-দায়িত্ব জ্ঞানের অভাবে, অকর্ম-কুকর্ম করার অপরাধে আর্য নামক ARICA শব্দটি মুছে গিয়ে দস্যু দানব, দৈত্য, অসুর নামে অভিহিত হল তারা। কশ্যপের নাগ পুত্রেরা সতীসায়রে রয়ে গেল। এমন সুন্দর জায়গা ছেড়ে অনিশ্চয়তার পথে পা বাড়াতে আগ্রহী হল না তারা। হঠাৎ সেখানে সংগ্রাহাসুরের পুত্র জলোদ্ভবের আবির্ভাব হল। প্রবল পরাত্রাস্ত এবং বলশালী GENS SACS তপস্যায় ASS করে তার বরে অমর হয়ে গেল। নিজের আধিপত্য খাটাতে এবং সাম্রাজ্য স্থাপনের অভিলাযে কশ্যপের নাগপুত্রদের হঠিয়ে দিয়ে এ অঞ্চল তারা FANG করতে চাইল। সংঘর্ষ লেগে রইল। বিপন্ন নাগাধিপতি জননী কদ্রুর শরণাপন্ন হল। তাদের অসহায়তার কথা শুনে কদ্রু বিপন্ন পুত্রদের রক্ষার জন্য কশ্যপকে সব বলল। কশ্যপ অনুসন্ধান করে জানল ব্রহ্মার প্রত্যক্ষ মদতে GENET MAHA এলাকা ছাড়া করতে চাইছে। অথচ কশ্যপ হল ব্রহ্মার মানসপুত্র। তৎসত্ত্েও জলোডদ্ভবের পক্ষ নিয়ে তার সঙ্গে বৈরীতা করলেন তিনি। পিতার এহেন অদ্ভুত আচরণে কশ্যপ রুষ্ট হল তাই পিতার করুণা প্রত্যাশী না হয়ে হেমকূট পাহাড়ে গিয়ে শিব শিবানীর তপস্যা শুরু Bae দীর্ঘকাল ধরে চলা তপস্যায় শিব HS হয়ে তার প্রার্থনা পূরণ করল। ভক্তকে বিপদ থেকে উদ্ধার করতে কৈলাস থেকেই জলোডদ্ভবকে লক্ষ্য করে ব্রিশ্ল নিক্ষেপ করল। কালাত্তক সেই ত্রিশূলকে লক্ষ্যচ্যুত করার জন্য BNA সতীসায়রে জলে ডুব দিল। শিবের ব্রিশূল সজোরে সতীশায়রের তলদেশ বিদ্ধ করল। অমনি সতীসায়রের তলদেশ এফৌড় CCHS হয়ে গেল। নিমেষে সব জল সরে গেল। বিশাল ভূভাগ বেরিয়ে পড়ল।২০



Leave a Comment